দইয়ের ইতিকথা

বগুড়া’র ঐতিহ্যবাহী দই

বগুড়া’র দই মানেই শেরপুরের দই!!!

Doi er etikotha khoraqবর্তমানে আমরা বগুড়া’র যে দই খাই তার জন্ম বগুড়া জেলার শেরপুর উপজেলায়। গৌড় গোপাল চন্দ্র ঘোষ নামে ভারতের পশ্চিম বঙ্গ থেকে পূর্ববাংলায় অভিবাসী হয়ে বগুড়া জেলার শেরপুরে বসবাস শুরু করেন যার পৈত্রিক পেশা ছিল দুগ্ধজাত খাদ্য উৎপাদন করা। তিনি শেরপুর থেকে দই উৎপাদন করে প্রতিদিন ২০ কিলোমিটার পায়ে হেঁটে বগুড়ায় বিক্রি করতেন। তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী মোহাম্মদ আলী’র পরিবার এই দই খুব পছন্দ করতেন এবং পরবর্তীতে গৌড় গোপালকে বগুড়া শহরে স্থায়ী দোকানের ব্যবস্থা করে দেন যা গৌড় গোপাল দধি নামে পরিচিত। বগুড়া শহরে অনেক দই তৈরি হলেও শেরপুরের দই এর স্বাদ, বর্ণ ও মানে সবসময়ই আলাদা। সুতরাং দই প্রেমী অনেকেই বগুড়া শহরে বসবাস করেও শেরপুর থেকে দই কিনে খান।

কেন শেরপুর বগুড়া’র দই বিখ্যাত ?

ভৌগোলিক কারণে পৃথিবীর বিভিন্ন অঞ্চলের আবহাওয়া, জলবায়ু, পানি, মাটি ভিন্ন ভিন্ন হয় এবং সকল স্থানে একই পণ্য সামগ্রী উৎপাদিত হয় না। একই কারণে বগুড়া জেলার চান্দাইকোনা থেকে শুরু করে মহাস্থানগড় পর্যন্ত এলাকার মাটি, পানি, বায়ু’র বিশেষ বৈশিষ্ট্য’র ফলে এ অঞ্চলে যে গাভীর দুধ উৎপাদন হয় তার মান অন্য জেলার দুধ থেকে আলাদা হয় এবং সেই দুধ থেকে

যে দই তৈরি হয় তার বৈশিষ্ট্য অন্য কোন স্থানের দই এর সঙ্গে মেলে না। অনেকেই বগুড়া থেকে কারিগর নিয়ে অন্য জেলায় দই তৈরির চেষ্টা করেছেন কিন্তু সফল হন নাই। এ সকল কারণে বগুড়া তথা শেরপুর-বগুড়ার দই সারা দেশে বিখ্যাত।

দই এর উপকারিতা (মিষ্টি দই এর চেয়ে টক দই ভালো)

• রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে।
• ঠান্ডা, সর্দি ও জ্বর ভালো করতে সাহায্য করে।
• শরীরের ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়াকে মেরে ফেলে।
• কোষ্ঠকাঠিন্য, ডায়রিয়া ও কোলন ক্যান্সার নিরাময়ে সহয়তা করে।
• পাকস্থলির জ্বালাপড়া কমাতে এবং হজমের সমস্যা দূর করতে সহায়তা করে।
• রক্তের কোলেস্টেরল কমায়।
• উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করে।
• ডায়বেটিস ও হৃদরোগ নিয়ন্ত্রণে ভূমিকা রাখে।
• বিভিন্ন খাবারের পুষ্টি শরীরে সরবরাহ করতে সাহায্য করে।
• শক্তি বৃদ্ধি করে।
• মানসিক প্রশান্তি দেয় ও ক্লান্তি দূর করে।
• শরীরে টক্সিন জমতে বাধা দেয় এবং অন্ত্রনালী পরিষ্কার করে।
• অকাল বার্ধক্য রোধ করে এবং ত্বকের সৌন্দর্য্য বৃদ্ধি করে।
• দইয়ে রয়েছে প্রচুর ক্যালসিয়াম ও ভিটামিন ডি যা হাড়
মজবুতে ভূমিকা রাখে ।
• দই রক্তের শ্বেত কণিকা বাড়িয়ে দেয়, যা ছত্রাকের বিরুদ্ধে
প্রতিরোধ গড়ে তোলে।
• ওজন কমাতেও দই সহায়ক। দই দেহের চর্বি কমায়।
• টক দই রুক্ষ ও শুষ্ক চুলের মসৃণতা ফিরিয়ে আনে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close
Recent Comments
Categories
Archives
Navigation
Close

My Cart

Close

Wishlist

Recently Viewed

Close

Great to see you here!

A password will be sent to your email address.

Your personal data will be used to support your experience throughout this website, to manage access to your account, and for other purposes described in our privacy policy.

Already got an account?

Close

Close

Categories